Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net

Google Keep কি? গুগল কিপ এর চমৎকার ব্যবহার

আপনি কি Google Keep এর নাম কখনো শুনেছেন? Google এর সাথে আমরা সবাই পরিচিত অনেকেই হয়তো Google Keep শব্দ দুটির সাথে খুব বেশি পরিচিত না।

গুগলের অনেকগুলো সেবা রয়েছে যেমন, গুগল ড্রাইভ, গুগল ডকস, জিমেইল ইত্যাদি। ঠিক তেমনি গুগলের আরও একটি জনপ্রিয় সেবার নাম হচ্ছে গুগল কিপ।

দৈনন্দিন জীবনে আমাদের অনেককিছুই নোট করে রাখতে হয়। যেমন হতে পারে প্রতিদিনের বাজারের তালিকা, প্রতিদিনের বাজারের খরচ, আপনার ফেসবুকের পাসওয়ার্ড, আপনার ক্লাশের নোট ইত্যাদি।

এসব নোট করে রাখার জন্য আমরা সাধারণত ডায়েরি কিংবা খাতা ব্যবহার করে থাকি। তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে এসেও যদি আমরা ডায়েরি কিংবা খাতা ব্যবহার করি তাহলে তো তথ্য প্রযুক্তির সদ্ব্যবহার করা হবে না।

নোট করে রাখার জন্য কেউ কেউ বিভিন্ন অ্যাপস ব্যবহার করে থাকি, কিন্তু যদি ভুল ক্রমে আপনার নোট করে রাখার জন্য অ্যাপসটি আন-ইনস্টল হয়ে যায় তবে আর নোট গুলো ফিরিয়ে আনতে পারব না।

এক্ষেত্রে ব্যবহার করা যেতে পারে গুগল কিপ। আপনার মোবাইল থেকে অ্যাপস ডিলিট হয়ে গেলে কিংবা মোবাইল হারিয়ে গেলেও হারিয়ে যাবে না আপনার সেভ করা তথ্য। অবাক লাগছে তাই না! হ্যাঁ এটাই সত্যি।

আসুন জেনে নেই, Google Keep কি? কিভাবে গুগল কিপ ব্যবহার করা যায়?

What is Google Keep? How to Use Google Keep?

গুগল কিপ কি? (What is Google Keep?)

গুগলের অনেক গুলো সেবার মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং জনপ্রিয় সেবা হচ্ছে গুগল কিপ (Google Keep). বিভিন্ন ধরণের তথ্য বা নোট গুগল কিপ এ সুন্দর ভাবে স্টোর করে রাখা যায় গুগল কিপ এর মধ্যে।

একবার সেভ হয়ে গেলে আপনি না চাওয়া পর্যন্ত তা ডিলিট হয়ে যাওয়ার বিন্দুমাত্র সম্ভাবনা নেই। গুগল এই সেবাটি জনসাধারণের জন্য ফ্রি করে দিয়েছে অর্থাৎ আপনি যদি ব্যবহার করতে চান তবে কোন টাকা পয়সা দিতে হবে না।

আসুন জেনে নেই, Google Keep এর চমৎকার কিছু ব্যবহার।

Google Keep এর ব্যবহার

১. প্রতিদিনের কাজ

আমরা সবাই প্রতিদিনের কাজের একটি রুটিন করে থাকি এবং সে রুটিন অনুযায়ী কাজ করি। এই রুটিনটি অনেকে ডায়েরি কিংবা খাতায় নোট করে রাখি। রুটিন করে রাখার কারণ হচ্ছে, কাজ গুলো গুছিয়ে করা আমাদের জন্য সহজ হয়ে যায়।

এই কাজটি আরও বেশি সহজ করতে ব্যবহার করতে পারেন গুগল কিপ (Google Keep). অনেক সময় কাজের জায়গায় ডায়েরি বা খাতা নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয় না, কিন্তু আপনার মোবাইলটি সাথে নিয়ে যান।

আপনার মোবাইলে গুগল কিপ এ প্রতিদিনের কাজ নোট করে রাখতে পারেন এবং যখন ইচ্ছা তখন মোবাইল বের করে দেখে নিতে পারেন। এতে করে কোন গুরুত্বপূর্ণ কাজ বাদ পড়ার কোন সম্ভাবনা থাকবে না।

২. রিডিং লগ

রিডিং লগ হচ্ছে আপনি একটি বই পড়ছেন, কতটুকু পড়লেন তার পৃষ্ঠা নম্বর, কিংবা হেডলাইন, হতে পারে টপিকস ইত্যাদি লিখে রাখা। এই কাজটি করার জন্য আপনি খুব সহজেই গুগল কিপ ব্যবহার করতে পারেন।

আপনি একটি বিষয় বুঝতেছেন না কিংবা কোন শব্দের অর্থ মনে করতে পারছেন না সেটি টুকে রাখতে পারেন গুগল কিপএ। পরবর্তীতে আপনি সেগুলো খুব সহজে সল্ভ করতে পারবেন।

৩. ক্লাস নোট

ক্লাস চলাকালীন সময়ে কিছু কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় খাতায় নোট করে রাখার প্রয়োজন পড়ে। এক্ষেত্রে আপনি খাতার বদলে গুগল কিপ ব্যবহার করতে পারেন খুব সহজেই।

খাতা হারিয়ে যেতে পারে কিংবা পৃষ্ঠাটি কোনভাবে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। যদি গুগল কিপ ব্যবহার করেন তবে এই হারিয়ে যাওয়া কিংবা নষ্ট হয়ে যাওয়ার কোন ভয় থাকবে না।

জেনে নিন, গুগল ড্রাইভ কি এবং কিভাবে ব্যবহার করা যায়?

৪. লক্ষ্য নির্ধারণ

সফল হওয়ার পিছনে সবচেয়ে বেশি যে বিষয়টি কাজ করে তা হল লক্ষ্য। ধরুন, আপনি একটি ক্লাস কিংবা কোর্স করবেন, এই কোর্সটি করার লক্ষ্য আপনাকে আগেই নির্ধারণ করে রাখতে হবে।

সে লক্ষ্যগুলো আপনি লিখে রাখতে ব্যবহার করতে পারেন গুগল কিপ। যখন কোর্স শেষ হয়ে যাবে তখন সহজেই আপনি মিলিয়ে নিতে পারবেন এবং আপনার লক্ষ্য কতটুকু অর্জিত হল সেটিও বুঝতে পারবেন।

৫. সময় ব্যবস্থাপনা

সময় ব্যবস্থাপনা অর্থাৎ টাইম ম্যানেজমেন্ট একজন মানুষের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। ছাত্র কিংবা চাকুরীজীবী, কিংবা হতে পারে অফিসের বস, সবার জন্য টাইম ম্যানেজমেন্ট অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

একটি কাজ সময়ের মধ্যে শেষ করা, ঠিক সময়ে মিটিং এ উপস্থিত থাকা ইত্যাদি অনেকেই মনে রাখতে পারে না। এক্ষেত্রে গুগল কিপ আপনাকে সাহায্য করতে পারে।

আপনার মিটিং এর তারিখ এবং স্থান গুগল কিপ এ লিখলেন এবং রিমাইন্ডার সেট করে রাখলেন। এতে করে রিমাইন্ডারে সেট করা সময় অনুযায়ী গুগল কিপ আপনাকে মিটিং এর কথা স্মরণ করিয়ে দেবে।

৬. প্রজেক্ট ব্যবস্থাপনা

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন ধরণের প্রজেক্টের কাজ করে থাকে। এছাড়াও ছাত্র ছাত্রীরা বিভিন্ন প্রজেক্টের কাজ করে থাকে। এসব প্রজেক্টের কাজকে সহজ করার জন্য ব্যবহার করতে পারেন গুগল কিপ।

আপনার প্রজেক্টের কপি গুগল কিপে সেভ করে রাখতে পারবেন এবং যখন খুশি তখন মনিটরিং করতে পারবেন। প্রজেক্টের প্রতিদিনের কাজগুলোকে সহজে আপডেট করে রাখতে পারবেন। যাচাই করে দেখতে পারবেন আপনার প্রজেক্টের অগ্রগতি।

৭. বুকমার্ক করে রাখা

আমরা প্রতিদিনই কোন কোন কারণে ওয়েব ভিজিট করে থাকি বিভিন্ন ধরণের তথ্য সংগ্রহের জন্য। এতগুলো ওয়েব এড্রেস মনে রাখা অনেক কঠিন একটি কাজ। আপনার এই কাজটি সহজ করে দেবে গুগল কিপ। যেকোনো ওয়েব লিংক বা ওয়েব এড্রেস, ডকুমেন্ট লিংক, টিউটোরিয়াল লিংক ইত্যাদি খুব সহজেই বুকমার্ক করে রাখা যায় গুগল কিপ এ।

৮. গবেষণা নোট

আপনি একটি বিষয় নিয়ে গবেষণা করছেন, এক্ষেত্রে আপনার আইডিয়া, কাজের লিস্ট, নতুন বিষয় সংযোজন, কেন বিষয় বাদ দেয়া ইত্যাদি সবকিছুই করতে পারবেন গুগল কিপে। এতে আপনার গবেষণার কাজ অনেক সহজ হতে পারে।

৯. জার্নালিং

আমরা প্রতিদিন নতুন নতুন বিষয় নিয়ে পড়াশুনা করা থাকি। কি শিখলাম, কি জানলাম কিংবা আগাকাল কি শিখব এসব কিছু লিখে রাখতে পারি গুগল কিপ এ। এক বছর পর যদি আপনি চান দেখে নিতে পারবেন যে, এক বছরে আপনি কি কি শিখেছেন।

জেনে নিন, গুগল ডকস কি এবং এর চমৎকার কিছু ব্যবহার

Google Keep ব্যবহারের নিয়ম বা পদ্ধতি

Google Keep ব্যবহার করতে হলে প্রথমে আপনার একটি গুগল অ্যাকাউন্ট বা জিমেইল অ্যাকাউন্টের প্রয়োজন হবে। তিনভাবে আপনি গুগল কিপ ব্যবহার করতে পারেন। আসুন জেনে নেই গুগল কিপ এর ব্যবহার পদ্ধতি।

১. গুগল কিপ ওয়েব ভার্সন

আমরা যেমন ওয়েবসাইট ভিজিট করে থাকি ঠিক তেমনি প্রথমে আপনাকে গুগল কিপের ওয়েবসাইটে যেতে হবে। আপনাদের সুবিধার জন্য আমি লিংকটি দিয়ে দিলাম https://keep.google.com/

এরপর একটি জিমেইল আইডি দিয়ে লগইন করতে হবে। এর থেকে বেশি কিছু করতে হবে না। সেখানে গেলেই দেখতে পাবেন Take a note… এই অপশনে ক্লিক করে লিখতে পারবেন আপনার পছন্দের নোট।

২. গুগল কিপ ক্রম এক্সটেনশন

Google Keep Chrome Extension টি প্রথমে আপনার ক্রম ব্রাউজারে অ্যাড করতে হবে। এটি ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই আপনার জিমেইল অ্যাকাউন্টটি লগইন করে রাখতে হবে। এক্সটেনশন অ্যাড হয়ে গেলে, আইকন এ ক্লিক করে যেকোনো কিছু নোট করতে পারবেন খুব সহজেই।

আপনাদের সুবিধার জন্য আমি Google Keep Chrome Extension লিংকটি নিচে দিয়ে রাখলাম। আপনি চাইলে এখান থেকে এক্সটেনশনটি আপনার ক্রম ব্রাউজারে অ্যাড করে নিতে পারেন। https://chrome.google.com/webstore/detail/google-keep-chrome-extens/lpcaedmchfhocbbapmcbpinfpgnhiddi

৩. গুগল কিপ অ্যানড্রয়েড ভার্সন

আপনি যদি স্মার্টফোন ব্যবহার করে থাকেন তবে খুব সহজেই গুগল প্লে স্টোর থেকে গুগল কিপ অ্যানড্রয়েড অ্যাপসটি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। ইন্সটল করার পর একটি জিমেইল অ্যাকাউন্ট দিয়ে লগইন করে নিতে হবে।

লগইন হয়ে গেলেই Take a note অপশনটি পেয়ে যাবেন। গুগল কিপ অ্যানড্রয়েড ভার্সন লিংকটি আপনাদের সুবিধার জন্য নিচে দিয়ে রাখলাম।

https://play.google.com/store/apps/details?id=com.google.android.keep&hl=en

মনে রাখবেন, গুগল কিপ ব্যবহার করতে হলে আপনার ডিভাইসটিতে ইন্টারনেট কানেকশন লাগবে। যদি আপনি নেট কানেকশন না দেন তবে আপনি যা নোট করবেন সেই নোট গুলো সেই মুহূর্তে সেভ হবে না।

চিন্তার কোন কারণ নেই, যখন আপনি আপনার ডিভাইসটিতে ইন্টারনেট কানেকশন দেবেন ঠিক তখনই নতুন নোটগুলো অটো সেভ হয়ে যাবে।

Google Keep নিয়ে আমরা বিস্তারিত জানলাম। আজ এ পর্যন্ত, আগামীতে হাজির হব নতুন কোন প্রযুক্তি নিয়ে, সে পর্যন্ত ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন। আল্লাহ হাফেজ।

 

আরও পড়ুন,

 

*লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন*

Check Also

What is Google Drive, Why and How to Use Google Drive

Google Drive কি? কেন এবং কিভাবে গুগল ড্রাইভ ব্যবহার করবেন?

ক্লাউড কম্পিউটিং এর সাথে আমরা অনেকেই হয়তো পরিচিত নই। ক্লাউড কম্পিউটিং জগতে যতগুলো সেবা রয়েছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!