Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home » পড়াশোনা » ইংরেজিতে উন্নতি করার কার্যকরী উপায়

ইংরেজিতে উন্নতি করার কার্যকরী উপায়

ইংরেজি ভাষার গুরুত্ব সম্পর্কে আমরা অনেক কিছু পড়েছি, জেনেছি, কিন্তু ইংরেজি শিখব কীভাবে সেটাই বুঝে উঠতে পারি না। কীভাবে ইংরেজি চর্চা করলে আমরা দ্রুত ইংরেজিতে দক্ষ হতে পারব এটাই আসল বিষয়।

আসুন জেনে নেই, ইংরেজিতে দক্ষ হওয়ার কার্যকরী কিছু টিপস, যা আপনার জীবনকে বদলে দিতে পারে। 

Ways you can apply to improve your English language

ইংরেজিতে দক্ষ হওয়ার কার্যকরী উপায়

১. আপনার পছন্দের ব্যাক্তির Spoken English নকল করুন

আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে, আমি কেন অন্যজনকে নকল করতে যাব? সত্যি কথা বলতে কি, এটাই স্পকেন ইংলিশ এর জন্য সবচেয়ে উত্তম উপায়।

আপনি যদি ইংরেজিতে দক্ষ হতে চান তবে অবশ্যই আপনি আপনার পছন্দের English Speaker কে নকল করবেন। তার কথা বলার স্টাইল দেখবেন, তার মত করে কথা বলার চেষ্টা করবেন।

নিজে নিজে যখন চেষ্টা করতে থাকবেন তখন আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন আপনার কোন কোন জায়গায় সমস্যা আছে, কীভাবে কথা বলতে আপনি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন। আপনার ভুলগুলো নিয়ে কাজ করুন, সেগুলোকে শুধরানোর চেষ্টা করুন।

এভাবে নিয়মিত চর্চা করতে করতে দেখবেন আপনিও তার মত ইংরেজিতে পারদর্শী হয়ে উঠেছেন। লজ্জা পাবেন না, কারণ এটাই একমাত্র কার্যকরী পদ্ধতি।

২. নিজের সাথে নিজেই কথা বলুন

নিজের সাথে নিজে আবার কীভাবে কথা বলবো? আর নিজের সাথে নিজে কথা বললে তো মানুষ ভাববে আমি পাগল হয়ে গেছি।

কিন্তু ইংরেজিতে দক্ষ হতে হলে নিজের সাথে নিজে কথা বলা একটি সর্বোত্তম উপায়। এর থকে কার্যকরী কোন উপায় নেই বললেই চলে।

বড় আয়নার সামনে দাড়িয়ে নিজের সাথে নিজেই কথা বলা শুরু করে দিন আজ থেকেই। কে কি বলল না বলল সেগুলোতে কান দিলে আপনার ইংরেজি শেখা হবে না। তবে হ্যাঁ নিজের সাথে নিজেই কথা বলবেন ঠিক আছে কিন্তু সেটা অবশ্যই ইংরেজি ভাষায় বলবেন।

চিন্তায় পরে গেলেন? কি টপিক নিয়ে কথা বলবো? চিন্তার কোন কারণ নেই, আপনি যেকোনো টপিক নিয়ে কথা বলা শুরু করতে পারেন। প্রতিদিন ৩০ মিনিট করে চর্চা করলে আপনি অনেক ইংরেজি শব্দ আয়ত্ত করতে পারবেন, আপনার জড়তা কেটে যাবে।

৩. ইংরেজিতে কথা বলার জন্য বন্ধু নির্বাচন করুন

আপনার পাশে অনেক বন্ধু আছে যারা ইংরেজিতে অনেক ভাল। প্রতিদিন রুটিন করে তাদের সাথে ইংরেজিতে কথা বলুন। প্রথম প্রথম আপনার ভুল হবে তাতে আপনার বন্ধুরা হাসাহাসিও করতে পারে তবে এতে লজ্জা পাবেন না, তাদেরকে বলবেন আপনার ভুলগুলো ধরিয়ে দিতে।

এতে করে আপনার ভুলগুলো আপানার সামনে ফুটে উঠবে এবং ভুলগুলো নিয়ে কাজ করুন। প্রতিদিন নতুন নতুন টপিকস নিয়ে আলোচনা করুন।

এভাবে কয়েক সপ্তাহ চর্চা করলে আপনার কথা বলার জড়তা ধীরে ধীরে কমে আসবে এছাড়াও অনেক নতুন নতুন ইংরেজি শব্দ শিখতে পারবেন অনায়াসে।

আশেপাশে ভাল ইংরেজি জানা বন্ধু না পেলে Whatsapp অথবা Mesenser এর মাধ্যমে তাদের সাথে ইংরেজিতে কথা বলতে পারেন। তবে একটানা দীর্ঘ সময় কথা না বলাই উত্তম, এতে কানের ক্ষতি হতে পারে। 

৪. সঠিক এবং স্পষ্ট উচ্চারণ করার চেষ্টা করা

আপনি খুব দ্রুত ইংরেজি বলতে পারেন কিন্তু আপনার উচ্চারণ অস্পষ্ট তাহলে সেটা ভাল বক্তার পরিচয় বহন করে না। আজ থেকেই ইংরেজি যাই পড়ুন না কেন সঠিক উচ্চারণের প্রতি মনোযোগ দিন, নিয়মিত চর্চা করুন।

উচ্চারণ স্পষ্ট করার জন্য খুব বেশি পরিশ্রম করতে হবে না, যেকোনো শব্দকে Syllable অনুযায়ী ভেঙ্গে ভেঙ্গে উচ্চারণ করার অভ্যাস করলেই সঠিক উচ্চারণ সহজেই আয়ত্ত করা যাবে। এতে করে আপনার বানান ভুলের সম্ভাবনা অনেকাংশে কমে আসবে।

৫. Subtitle সহ BBC ডকুমেন্টারি দেখুন

প্রথম অবস্থায় Subtitle সহকারে BBC ডকুমেন্টারি অথবা ইংরেজি সিনেমা দেখুন এবং বুঝার চেষ্টা করুন। তাদের ভঙ্গি এবং উচ্চারণের প্রতি নজর দিন।

তাদের মত করে উচ্চারণ করার চেষ্টা করুন। কিছুদিন পর Subtitle ছাড়া সিনেমা গুলো দেখুন, এবং নিজে নিজে উচ্চারণ চর্চা করুন।

এভাবে কয়েক সপ্তাহ নিয়মিত চর্চা করলে আপনি নিজেই লক্ষ্য করবেন আপনার ইংরেজি বলার মাঝে অনেক পরিবর্তন এসেছে।

৬. ইংরেজি বক্তাদের বক্তব্য শুনুন

বর্তমান জামানায় ইউটিউব এ পাওয়া যায় না এমন কোন জিনিস নেই। তাই ইউটিউব এ আপনি আপনার পছন্দের বক্তার নাম লিখে সার্চ দিলেই তাদের বক্তব্য চলে আসবে।

TEDx Talk এর অধিকাংশ বক্তা অনেক ভাল বক্তব্য দিয়ে থাকে। তাদের বক্তব্য শুনে অসংখ্য মানুষ অনুপ্রনিত হয়েছে। আপনি চাইলে তাদের বক্তব্য শুনতে পারেন।

ইংলিশ বক্তাদের বক্তব্য শুনলে এবং দেখলে তাদের বাচনভঙ্গি, উচ্চারণ ইত্যাদি শিখতে পারবেন। বক্তব্যের মাঝে কোন শব্দের অর্থ জানা না থাকলে সাথে সাথে তা ডিকশনারি থেকে দেখে নিন এবং চাইলে আপনার নোটবুক এ লিখে রাখতে পারেন। 

ইংলিশ বক্তাদের বক্তব্য শুনলে আপনি যে শুধু ইংরেজি শিখবেন তা নয়, সেখান থেকে আপনি অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেতে পারেন, যা পরবর্তীতে আপনার কাজে লাগতে পারে।

৭. নিজের ভয়েচ রেকর্ড করুন

নিজের ভয়েচ রেকর্ড করুন এবং নিজে নিজে শুনুন, কোথায় কোথায় আপনার সমস্যা আছে তা আপনি নিজেই ধরতে পারবেন।

একটি ইংরেজি পত্রিকা নিন এবং পড়ুন ও রেকর্ড করুন, তারপর আপনি তা নিজে শুনুন এবং ভুলগুলো বের করুন, অথবা আপনার পাশে থাক বন্ধুকে শোনান, এবং তাকে বলুন ভুলগুলো ধরিয়ে দিতে।

এতে লজ্জা পাবেন না। এভাবে চর্চা করলে আপনার দুর্বলতাগুলো ধীরে ধীরে কমে আসবে।

৮. নিজের পড়া নিজেকে শোনান

ইংরেজি ভাষার যেকোনো লেখা এমনভাবে পড়ুন যেন আপনি নিজেই তা ভালভাবে শুনতে পান। স্পষ্ট উচ্চারণ এবং জড়তা কাটানোর জন্য এর বিকল্প নেই।

উপরের আলোচনাগুলো ছিল স্পকেন ইংলিশ নিয়ে। এখন আমরা জানব কিভাবে রিটেন ইংলিশে দক্ষতা বাড়ানো যায়?

যেকোনো টপিকস ইংরেজিতে লেখার জন্য তিনটি বিষয়ের উপর অত্যাধিক গুরুত্ব দিতে হবে।

      • প্রচুর ভোকাবুলারি জানা।
      • শব্দের সঠিক বানান জানা।
      • ইংরেজি গ্রামার সমন্ধে ভাল ধারণা রাখা।

এই তিনটি বিষয় কীভাবে আপনি আয়ত্ত করবেন তা নিয়ে বিস্তারিত জানতে পারবেন নিচের লেখা থেকে। 

১. প্রচুর পরাশুনা করা

ইংরেজিতে ভাল লিখতে প্রথমে আপনাকে প্রচুর পড়তে হবে। এর মাধ্যমে আপনি প্রচুর ইংরেজি শব্দের অর্থ শিখতে পারবেন, বিভিন্ন ইংরেজি শব্দের সঠিক প্রয়োগ জানতে পারবেন, ছোট কিংবা বড় ইংরেজি বাক্য গঠন অথবা স্টাইল শিখতে পারবেন।

অনেক বেশি পড়লে আপনি ভাল লেখা এবং খারাপ লেখার মধ্যে সহজেই পার্থক্য করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে নিচের কাজগুলো নিয়মিত করতে হবে-

* ইংরেজি গল্পের বই পড়া

শুরুতে আপনি ছোটদের ইংরেজি গল্পের বই পড়তে পারেন, ধীরে ধীরে বড়দের ইংরেজি গল্প, উপন্যাস পড়তে পারেন, নিজের পছন্দের লেখকের বইও পড়তে পারেন।

এভাবে নিয়মিত পড়লে আপনার ইংরেজি শব্দের প্রয়োগ এবং প্রচুর ইংরেজি শব্দের অর্থ জানতে পারবেন।

* ইংরেজি পত্রিকা পড়ুন নিয়মিত

কম্পিউটার কিংবা মোবাইল এ ইংরেজি পত্রিকা না পড়ে হকারের কাছ থেকে ইংরেজি পত্রিকা কিনুন। একদিনে সব পরার চেষ্টা করবেন না, এতে করে আপনি বিরক্ত হয়ে যাবেন।

প্রতিদিন একটি করে আর্টিকেল মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

২. ফ্ল্যাশকার্ড পদ্ধতি অনুসরণ করুন

ফ্ল্যাশ কার্ড তৈরি করা খুবই সহজ একটি কাজ। কিছু মোটা কাগজ কিনে এনে, সামান্তরিক আকৃতির আপনার পছন্দমতো সাইজে কেটে নিন।

কার্ডটির একপাশে ইংরেজি শব্দটি ও উচ্চারন এবং অপরপাশে শব্দটির অর্থ লিখে রাখুন। প্রতিদিন ১০-২০ টি নতুন নতুন শব্দ এভাবে লিখে রাখুন এবং প্রতিদিন সময় পেলে চর্চা করুন। এভাবে চর্চা করলে আপনার বিরক্তি লাগবে না।

৩. কোনকিছু মুখস্ত করা থকে বিরত থাকুন

হ্যাঁ অবশ্যই আপনাকে কোনকিছু মুখস্ত করা থেকে বিরত থাকতে হবে কারণ আপনি যখন কোনকিছু মুখস্ত করবেন, কিংবা আপনার মাঝে যখন মুখস্ত করার প্রবণতা সৃষ্টি হবে তখন আপনি কোন নতুন টপিকস নিয়ে ৩-৪ লাইনও লিখতে পারবেন না।

আপনি বিভিন্ন লেখকের বই পড়বেন কিন্তু মুখস্ত করার উদ্দেশ্যে নয়। সেখান থেকে আপনি ব্যাপক ধারনা নিন। এবং নতুন নতুন টপিকস নিয়ে আজ থেকে লেখার চর্চা করুন।

৪. Appropriate Preposition ও Idioms & Phrases এর ব্যবহার

ইংরেজি ভাষাকে স্মার্ট করতে Appropriate Preposition ও Idioms & Phrases এর ব্যবহার এবং প্রয়োগ জানা অত্যন্ত জরুরী।

বিভিন্ন ইংরেজি গ্রামার বই থেকে Appropriate Preposition ও Idioms & Phrases বের করে তার অর্থ ও সঠিক প্রয়োগ জানতে হবে।

প্রতিদিন নিয়মিত চর্চা করলে অল্পকিছুদিনের মধ্যেই আপনি এগুল আয়ত্ত করতে পারবেন। প্রতিদিন ৫-১০ টি Idioms & Phrases অর্থসহ পড়ুন এবং এগুলো দিয়ে ১০ টি করে ইংরেজি বাক্য নিজে নিজে তৈরি করুন।

এগুলো আয়ত্ত করতে আপনি ফ্ল্যাশকার্ড পদ্ধতি অনুসরন করতে পারেন।

৫. যেখানে সেখানে ইংরেজিতে লেখার অভ্যাস করুন

আপনি যা লিখতে পছন্দ করেন তা বাংলায় না লিখে ইংরেজিতে লেখার চেষ্টা করুন। যদি ভুল করেন তাতে কোন সমস্যা নেই, মনে রাখবেন আপনি যদি ভুল না করেন তবে শিখতে পারবেন না।

আপনি যদি প্রোডাক্ট এর রিভিউ লিখতে পছন্দ করেন তবে তা ইংরেজিতে লিখুন। যদি আপনি ইংরেজি সিনেমা দেখতে পছন্দ করেন তবে আপনার একটি পছন্দের সিনেমার রিভিউ লিখে ফেলুন ইংরেজিতে।

ধরুন আপনি তথ্য প্রজুক্তি নিয়ে লিখতে ভালবাসেন, তবে তা লিখুন ইংরেজিতে। আপনি ফেচবুক কিংবা টুইটার পছন্দ করেন? আপনি আপনার স্ট্যাটাস কিংবা মতামতগুলো ইংরেজিতে লিখুন।

যদি ভুল করেন তবে আপনার বন্ধুরা তা ধরিয়ে দেবে। এতে লজ্জা পাবেন না, বরং সেখান থেকে শেখার চেষ্টা করুন।

ধরুন আপনি একজন ইউনিভার্সিটির ছাত্র, সেখানে আপনাকে অনেক Assignment করতে হয়, সেগুলো কারো কাছ থেকে কপি না করে নিজে নিজে লেখার চেষ্টা করুন।

এতকিছুর পরেও যদি আপনার মনে হয় যে, আমার একটি কোর্স করা দরকার, তবে যেকোনো ভাল একটি প্রতিষ্ঠানে কোর্স করতে পারেন।

আমার জানামতে, ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে ইংরেজির উপর ১২০ ঘণ্টার একটি সাধারণ কোর্স আছে, এটি নন ডিগ্রি কোর্স, তবে করতে পারবেন অনায়াসে।

৬. ইংরেজি গ্রামার

ভাল ইংরেজি লিখতে হলে আপনাকে ইংরেজি গ্রামারের প্রতি গুরুত্ব অবশ্যই দিতে হবে। গ্রামার আয়ত্ত করতে হলে আপনাকে অবশ্যই নিয়মিত চর্চা করতে হবে। এক্ষেত্রে মুখস্ত করা থেকে বিরত থাকা জরুরী।

ইংরেজি গ্রামারের প্রথমদিকে আপনাকে Tense সম্পর্কে ভাল জানতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি যেকোনো পছন্দের লেখকের বই অনুসরন করতে পারেন। এর পর ধীরে ধীরে Voice, Narration ইত্যাদি সম্পর্কে জানুন এবং নিয়মিত চর্চা করুন।

ইংরেজি গ্রামারের বিভিন্ন টপিকস নিয়ে আমাদের ব্লগে নিয়মিত পোস্ট হয় আপনি চাইলে এখান থেকে সেগুলো পড়তে পারেন কিংবা PDF File ডাউনলোড করে রাখতে পারেন আপনার স্মার্ট ফোনে।

এছাড়াও আমাদের Facebook Page এ আমরা বিভিন্ন টপিকস পোস্ট করে থাকি আপনি চাইলে আমাদের সাথে Facebook Page এর মাধ্যমে কানেক্ট থাকতে পারেন।

আর এই পোস্টটি আপনার ভাল লাগলে আপনার বন্ধু কিংবা শুভাকাঙ্ক্ষীদের সাজেস্ট করুন, এবং শেয়ার করুন আপনার টাইমলাইনে।

নিয়মিত পড়ুন, চর্চা করুন নিজেকে যোগ্য করে তুলুন, সবার জন্য রইল শুভ কামনা।

 

আরও পড়ুন,

 

*লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন*

Check Also

Get Rid Of Your Sleep While Studying

পড়ার সময় ঘুম তাড়ানোর সহজ এবং কার্যকরী উপায়

কোন কিছু পড়তে বসলেই ঘুম এসে যায় চোখে? এরকম সমস্যায় শুধু আপনি না, পৃথিবীর হাজার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *