Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home » ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং » ঘরে বসে আয় করার সহজ এবং কার্যকরী উপায়

ঘরে বসে আয় করার সহজ এবং কার্যকরী উপায়

বর্তমানে এই ডিজিটাল যুগে কম বেশি সবাই পার্টটাইম জব করে থাকেন। কেউ কেউ ছাত্রজীবন থেকেই পার্টটাইম জব করেন, টিউশন পড়ান। মনে রাখতে হবে যে, যে যেভাবেই আয় করুক না কেন প্রতিটা কাজই সমান সম্মানের যোগ্যতা রাখে, এ ক্ষেত্রে পারিশ্রমিক কাম বা বেশি যাই হোক না কেন।

মহিলাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা গৃহিণী এবং অধিকাংশ সময় বাড়িতে বসে কাটান। অনেক ছাত্র ছাত্রী আছে যারা পরীক্ষার পর বাসায় বসে থেকে সময় কাটায়।

আজ আমি আপনাদের জন্য কিছু টিপস এবং উপায় বলবো যার মাধ্যমে খুব সহজেই ঘরে বসে থেকেই উপার্জন করতে পারবেন। আসুন উপায়গুলো  জেনে নেই।

Easy and effective way to earn money from home

ঘরে বসে আয় করার সহজ উপায়

১. ফ্রিল্যান্সার

ঘরে বসে থেকে উপার্জন করার অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি উপায় হলো ফ্রিল্যান্সার জব করা। ফ্রিল্যান্সার বিভিন্ন ক্যাটাগরির হয়ে থাকে।

যেমন, এস ই ও, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন, কন্টেন্ট রাইটার, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং, ডিজিটাল মার্কেটিং, ব্লগিং, এফিলিএট মার্কেটিং, ইত্যাদি। আপনি যেকোনো একটি বিষয়ের উপর প্রশিক্ষণ নিয়ে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ শিখতে পারেন।

আপনি ভালো করে কাজ শিখতে পারলে অনলাইন ভিত্তিক অনেক ভালো ভালো কাজ পেতে পারেন। প্রথমের দিকে কাজ পেতে একটু সময় লাগলেও অভিজ্ঞতা বাড়ার সাথে সাথে আপনার কাজ পাওয়ার পরিমাণও বাড়বে সেই সাথে  আয়ের পরিমাণও বাড়তে থাকবে।

২. কন্টেন্ট রাইটার

অনলাইন মার্কেটপ্লেসে কন্টেন্ট রাইটার এর মূল্য সবচেয়ে বেশি। বিভিন্ন বিষয়ের উপর লেখা লেখি করার অভ্যাস থাকলে আপনিও হতে পারেন একজন সফল কন্টেন্ট রাইটার। দেশি বিদেশি প্রায় সব কোম্পানি কন্টেন্ট রাইটার নিয়োগ দিয়ে থাকে।

কন্টেন্ট রাইটিং কাজের জন্য আপনি কিছু ওয়েবসাইটের সাহায্য নিতে পারেন। যেমন, https://expresswriters.com/, Freelance Writing, Text Broker, Writer Bay, UpWork ইত্যাদি।

এছাড়াও কোন অনলাইন পত্রিকা কিংবা দৈনিক প্রত্রিকার জন্য কন্ট্রিবিউটর হিসেবেও কাজ করতে পারেন। যেহেতু লেখা লেখির কাজ গুলো ঘরে বসেই সেহেতু আপনার উপার্জনটাও হবে ঘরে বসেই।

জেনে নিন, জিমেইলের গুরুত্বপূর্ণ ১০ টি অজানা ব্যবহার

৩. ব্লগিং

বর্তমানে ঘরে বসে আয় করার একটি আকর্ষণীয় মাধ্যম হলো ব্লগিং। বর্তমানে অনেক গৃহিণী, ছাত্র-ছাত্রী, বেকার যুবক – যুবতী, ব্লগিং এর সাথে জড়িত এবং অনেক টাকা উপার্জন করছেন ঘরে বসে থেকেই।

ব্লগিং করতে হলে প্রথমে আপনাকে আপনার পছন্দের একটি সেক্টরকে বেছে নিতে হবে অর্থাৎ যে বিষয় নিয়ে লেখা লেখি করতে আপনি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করবেন সেরকম একটি বিষয় বেছে নিতে হবে।

যদি আপনি মনে করেন যে আপনি রান্নার রেসিপি নিয়ে লেখা লেখি করতে পছন্দ করেন তাহলে তাই নিয়ে শুরু করে দিন আপনার ব্লগ। ব্লগ বিভিন্ন রকমের বা বিভিন্ন বিষয়ের উপর বানাতে পারেন যেমন, বিউটি  ব্লগ, ফ্যাশন ব্লগ, স্বাস্থ্য ব্লগ, লাইফস্টাইল ইত্যাদি।

আবার বিভিন্ন শিক্ষণীয় বিষয় নিয়েও ব্লগিং করতে পারেন। ব্লগিং এর কাজ গুলো যেমন উপভোগ করতে পারবেন তেমনি উপার্জনটাও হবে আশানুরূপ।

৪. ইউটিউবিং

বর্তমানে অনেকেই ভিডিও বানিয়ে তা ইউটিউবে শেয়ার করে অনেক মোটা অঙ্কের টাকা উপার্জন করছেন। বর্তমানে এটি পরিচিত একটি পেশা ও শখ।

বিভিন্ন বিষয়ের উপর আপনিও ভিডিও বানাতে পারেন। যেমন, ফানি ভিডিও, ফ্যাশন ভিডিও, লাইফস্টাইল ভিডিও, হেলথ টিপস সম্পর্কিত ভিডিও, ট্রাভেলিং সম্পর্কিত ভিডিও, রান্নার রেসিপি সংক্রান্ত ভিডিও, পড়াশুনা নিয়ে ভিডিও ইত্যাদি।

এক্ষেত্রে আপনাকে ভিডিও কোয়ালিটির উপর বিশেষ নজর রাখতে হবে। বাংলাদেশে অনেকেই আছেন যারা তাদের বানানো ভিডিও ইউটিউবে শেয়ার করে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছেন।

৫. অনলাইন শিক্ষক

অবাক হচ্ছেন তাই না! সত্যি বলছি, আপনিও হতে পারেন একজন সফল অনলাইন শিক্ষক। ইন্টারনেটের মাধ্যমে নিজের অর্জিত শিক্ষাকে হাজার হাজার লক্ষ লক্ষ শিক্ষার্থীর মাঝে ছড়িয়ে দিতে পারেন খুব সহজেই।

এক্ষেত্রে নিজস্ব ওয়েবসাইট, ইউটিউব চ্যানেল, কিংবা ফেসবুক কে ব্যবহার করতে পারেন অনায়াসেই। আর আপনি ছাত্র ছাত্রীদের কি শেখাবেন তা পুরোপুরি নির্ভর করবে আপনার দক্ষতার উপরে।

জেনে নিন, অ্যাফিলিয়েট নিশ খুঁজে পাওয়ার ১১ টি কার্যকরী উপায়

৬. আর্টিস্ট

আমাদের আশেপাশে অনেকেই আছেন যারা কোন না কোন কাজে খুবই পারদর্শী। কেউ আছেন অনেক ভালো মেহেদী লাগাতে পারেন, কেউ খুব ভালো কেকের ডিজাইন করতে পারেন, কেউ কেউ আছেন যারা কাগজ দিয়ে অনেক সুন্দর সুন্দর গিফট আইটেম বানাতে পারেন। অনেকে আছেন যারা সুন্দর সুন্দর ছবি একে বিক্রি করে থাকেন।

বর্তমানে অনেক অনলাইন শপ আছে যারা সুন্দর সুন্দর কেক এর ডিজাইন করে দেয়, মেহেদী লাগিয়ে দেয়, কাগজ দিয়ে সুন্দর সুন্দর গিফট বানিয়ে দেয়। এ ধরনের দক্ষতা আপনার মাঝে থাকলে আপনি তা কাজে লাগাতে পারেন আজ থেকেই।

৭. ফ্যাশন ডিজাইনার

আমাদের মাঝে অনেকেই আছেন যারা ফ্যাশন কিংবা পোশাকের ব্যপারে অনেক ভালো ধারনা রাখেন। আপনি ঘরে বসে সুন্দর সুন্দর জামা ডিজাইন করে তা বিক্রি করতে পারেন বিভিন্ন অনলাইন কিংবা ফেসবুক এর মাধ্যমে।

আপনার মাঝে যদি এই গুনটি থেকে থাকে তাহলে আজই শুরু করে দিন আপনার কাজ। এতে করে আপনি নিজেও আনন্দ পাবেন পাশাপাশি খুব অল্প পুঁজি খাটিয়ে আয়ও করতে পারবেন আর সেটা করতে পারবেন ঘরে বসে থেকেই।

৮. প্রোগ্রামার

যারা প্রোগ্রামার তারা মূলত কম্পিউটার এর ভাষা ভালো করে জানেন। কম্পিউটার ইঞ্জিয়ারেরা সাধারনত কোডিং সম্পর্কে খুব ভালো ধারনা রাখেন। আপনার যদি সেই ভাষা জানা থাকে তাহলে আপনিও বিভিন্ন সফটওয়্যার বানাতে পারবেন এবং তা বিক্রিও করতে পারবেন। বানাতে পারবেন অনলাইন লাইব্রেরী।

আপনি যদি কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার না হয়ে থাকেন তবে ভয় পাওয়ার কোন কারন নেই, অনেক প্রতিষ্ঠান আছে যারা খুব অল্প টাকার বিনিময়ে কোডিং শেখায়। সেখান থেকে আপনিও কোডিং শিখে নিতে পারেন।

৯. সিভি লেখক

সিভি লেখক পেশাটি বাংলাদেশে নতুন হলেও পৃথিবীর অনেক দেশে তা প্রচলিত আছে। আপনি যদি সিভি লেখায় পারদর্শী হোন তবে ঘরে বসে থেকেই টাকার বিনিময়ে গ্রাহকের জন্য সিভি লিখে দিতে পারেন। এই কাজটিও আপনি করতে পারেন অনলাইনের মাধ্যমে।

আমি বেশ কয়েকটি পেশার কথা বলেছি যা আপনাদেরকে যথেষ্ট সাহায্য করবে। উপরোক্ত পেশাগুলোর বাহিরে যদি কোন পেশার কথা আপনার জানা থাকে তবে আর বিলম্ব না করে কাজ শুরু করে দিন। এতে আপনার অবসর সময়টার যথাযথ প্রয়োগ করতে পারবেন এবং পাশাপাশি ঘরে বসে উপার্জনও করতে পারবেন।

তাই আসুন অলস সময় ব্যয় না করে কিংবা অযথা সময় নষ্ট না করে নিজের ভালো লাগা থেকে কিছু করার চেষ্টা করি। এতে করে আপনার ভালোও লাগবে সাথে ভালো উপার্জনও হবে।

লিখেছেন,

মোঃ নাজমুল হক

 

আরও পড়ুন,

 

*নিচের বাটনে ক্লিক করে আপনার প্রিয়জনদের সাথে শেয়ার করুন*

Check Also

What is SEO?

SEO কাকে বলে? SEO কেন এবং কাদের প্রয়োজন?

ইতিপূর্বে আমরা সার্চ ইঞ্জিন কি? এবং সার্চ ইঞ্জিন কিভাবে কাজ করে? এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *