Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home » ফ্যাশন ও লাইফ স্টাইল » পুরুষের যে ৬টি শারীরিক সমস্যা অবহেলা করলেই মহাবিপদ

পুরুষের যে ৬টি শারীরিক সমস্যা অবহেলা করলেই মহাবিপদ

পুরুষ কিংবা নারী সবাই কোন না কোন রোগে আক্রান্ত হতে পারেন। অনেক সময় নারী পুরুষ উভয়ই একই রোগে আক্রান্ত হন আবার ভিন্ন ভিন্ন রোগেও আক্রান্ত হতে পারেন।

কিছু রোগ আছে যেগুলোতে শুধুমাত্র নারীরাই আক্রান্ত হয়ে থাকেন। আবার কিছু রোগ আছে সেসব রোগে শুধুমাত্র পুরুষরাই আক্রান্ত হতে পারেন।

বিভিন্ন গবেষণায় উঠে এসেছে, পুরুষের এমন কিছু শারীরিক সমস্যা রয়েছে যেগুলোকে পুরুষরা প্রায়ই অবহেলা করে থাকে।

অধিকাংশ পুরুষই এসব শারীরিক সমস্যাকে গুরুত্ব দেয় না কিংবা ডাক্তারের কাছে যেতে চান না। অথচ এই সমস্যা গুলো থেকে ধীরে ধীরে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হতে পারেন এবং সেটা হতে পারে দীর্ঘমেয়াদী রোগ।

পুরুষের ক্ষেত্রে বেশ কিছু রোগ আছে যা প্রাথমিক পর্যায়ে রোগ হিসেবে প্রকাশ পায় না বা রোগ বলে মনে করা হয় না।

কিন্তু কিছু শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। এমন হলে যদি ডাক্তারের পরামর্শ না নেয়া হয় তবে একটা সময় মারাত্মক ক্ষতি বা দীর্ঘমেয়াদী রোগ হয়ে যেতে পারে।

তাই কিছু কিছু শারীরিক সমস্যা আছে তা দেখা দিলে অবশ্যই সতর্ক হওয়া জরুরী। আর যদি অবহেলায় দিনানিপাত করা হয় তাহলে মহাবিপদ সন্নিকটে।

আসুন তাহলে জেনে নেয়া যাক, পুরুষের কোন কোন শারীরিক সমস্যা দেখা দিলে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন এবং ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়া প্রয়োজন।

পুরুষের যে ৬টি শারীরিক সমস্যা অবহেলা করলেই মহাবিপদ Top 6 Health Problem for Men

পুরুষের শারীরিক সমস্যা যা মহাবিপদের লক্ষণ

রোগ হলে চিকিৎসা নিতে হয়, অসুধ খেতে হয়, বিভিন্ন নিয়ম কানুন মেনে চলতে হয়। যদি রোগ হওয়াটাকেই প্রতিরোধ করা যায় তবে সেটাই ভালো হয় কি না!

আসুন জেনে নেই, পুরুষের ৬ টি শারীরিক সমস্যা কি কি এবং পরিত্রাণের উপায় কি?

১. গোপনাঙ্গে অস্বাভাবিক ক্ষত বা তিল

আমাদের সমাজে যৌনাঙ্গের বা গোপনাঙ্গের কথা বললেই লজ্জা বোধ করে থাকেন। অধিকাংশ পুরুষই চুপ থাকেন কিংবা কথা বলতে অসস্তিবোধ করেন।

অথচ এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ এ কথা অনেকেই মাথায় নিতে চান না। যৌন স্বাস্থ্যের সুস্থতা নিয়ে অধিকাংশ পুরুষের আগ্রহ নেই বললেই চলে।

পুরুষের অণ্ডকোষ বা লিঙ্গে যদি অস্বাভাবিক মাত্রায় তিল বা ক্ষত দেখা যায় তবে সতর্কতা অবলম্বন করা অতীব জরুরী।

গবেষণায় দেখা গেছে, টেস্টিকুলার ক্যান্সারে এ ধরনের লক্ষণ দেখা দিতে পারে। আর টেস্টিকুলার ক্যান্সার সব থেকে পুরুষদেরই বেশি হয়ে থাকে।

আমাদের দেশের পুরুষরা এ ধরণের লক্ষণ বা উপসর্গকে অনেক সাধারণ মনে করে থাকেন এবং অবহেলায় দিন কাটিয়ে দেন।

কিন্তু এতে যে ক্যান্সার এ আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে সেসব মনেই করেন না। এক পর্যায়ে হারিয়ে যেতে পারে যৌন জীবন এমনকি পুরো জীবনটাই।

তাই এ ধরণের লক্ষণ দেখা দিলেই একজন যৌন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়া অতীব জরুরী।

আরও পড়ুনঃ

২. পুরুষত্বহীনতা বা ইরেকটাইল ডিসফাংশন

পুরুষত্বহীনতা বা ইরেকটাইল ডিসফাংশন এমন একটি অবস্থাকে বলা হয়, যখন যৌন মিলনের সময় লিঙ্গের সন্তোষজনক অর্জন বজায় রাখতে সামর্থ্য থাকে না।

একজন পুরুষের জন্য এটি একটি স্বাভাবিক সমস্যা, এমনটি হতেই পারে। কিন্তু প্রতিনিয়ত এমন হওয়া মোটেও স্বাভাবিক নয়। এক্ষেত্রে চিকিৎসা করানো আবশ্যক।

পুরুষত্বহীনতা বা ইরেকটাইল ডিসফাংশন বিভিন্ন কারণে হতে পারে, যেমন- লিঙ্গে অপর্যাপ্ত রক্ত প্রবাহ, অতিরিক্ত মাত্রায় ধূমপান, নেশা জাতীয় দ্রব্য গ্রহণ, মদ্যপান, অতিরিক্ত মোটা বা স্থুলতা, মানসিক চাপ, ডায়াবেটিস ইত্যাদি।

তাই ঘনঘন পুরুষত্বহীনতা বা ইরেকটাইল ডিসফাংশন দেখা দিলে একজন যৌন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের শরনাপন্ন হওয়া উচিৎ।

এবং যে কারণে পুরুষত্বহীনতা বা ইরেকটাইল ডিসফাংশন দেখা দেয় সেসব থেকে দূরে থাকা উচিৎ সাথে সতর্কতা অবলম্বন করা উচিৎ।

৩. অতিরিক্ত তৃষ্ণা পাওয়া

শরীরের জন্য পানি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। একজন সুস্থ মানুষ প্রতিদিন ২-৩ লিটার পানি পান করলেই যথেষ্ট।

এরপরেও যদি তৃষ্ণা লাগে তবে অথবা কেউ ৪-৫ বা ৬ লিটার পর্যন্ত পানি পান করে তবে এটি সাধারণত হাইপারগ্লাইসেমিয়ার লক্ষণ হতে পারে।

হাইপারগ্লাইসেমিয়া মূলত ডায়াবেটিস এর দিকে ইংগিত দেয়। ডায়াবেটিস বা বহুমুত্র রোগ সাধারণত বংশগত রোগ হিসেবে ধরে নেয়া হয়।

যদি বংশে কারোর ডায়াবেটিস থাকে তবে যত তারাতারি সম্ভব ডায়াবেটিস পরীক্ষা করা প্রয়োজন। বারবার তৃষ্ণা পেলে একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া খুবই জরুরী।

মনে রাখবেন, খাবার গ্রহণ নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে প্রাথমিক পর্যায়ের ডায়াবেটিস খুব সহজে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব এবং সুস্থ জীবন যাপন করা সম্ভব।

জেনে নিন, ধূমপান করা স্বাস্থ্যের জন্য কেন ক্ষতিকর?

৪. স্মৃতিশক্তি কমে যাওয়া

সাধারণত মানুষের বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে স্মৃতিশক্তি কমে যেতে পারে। কিন্তু অল্প বয়সে যদি এমন অবস্থা হয় তবে মোটেও অবহেলা করা উচিৎ নয়।

কেননা কম বয়সে স্মৃতিশক্তি কমে যাওয়ার অন্যতম একটি কারণ হচ্ছে মস্তিষ্কে সংক্রমণ।

এছাড়াও মদ্যপান, আলঝাইমার, স্ট্রোক কিংবা ডিমনেশিয়ার কারনেও স্মৃতিশক্তি কমে যেতে পারে।

শরীরে যদি ভিটামিন বি১২ এর অভাব হলে স্মৃতিশক্তি হ্রাস পেতে পারে। তাই কম বয়সে স্মৃতিশক্তি কমে গেলে অর্থাৎ হটাত যদি এমন অবস্থার সৃষ্টি হয় যে কোন কিছু মনে করতে পারছেন না অথবা বেশি বেশি ভুলে যাচ্ছেন তাহলে অবশ্যই সতর্ক হওয়া প্রয়োজন।

পাশাপাশি একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়া জরুরী।

৫. প্রসাবের রঙ পরিবর্তন বা প্রসাবে জ্বালাপোড়া

একজন সুস্থ মানুষ দিনে ২-৩ বার প্রসাব করে থাকে। ৩ বারের বেশি প্রসাব হলে সেটাকে রোগ ধরে নেয়া যেতে পারে।

প্রসাবের সময় জ্বালাপোড়া করা একটি মারাত্মক শারীরিক সমস্যা। আর আমাদের মাঝে অনেকেই এটাকে তেমন গুরুত্বই দেয় না।

প্রসাবে জ্বালাপোড়া হলে অবশ্যই একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া উচিৎ।

অনেক সময় প্রসাবের রঙ লালচে হয়, কিংবা হলুদ বর্ণের হতে পারে। আবার প্রসাবের সাথে রক্তও যেতে পারে। এগুলোকে কিন্তু অবহেলা করা মোটেও উচিৎ নয়।

কিডনিতে পাথর হলে অথবা প্রোস্টেট ক্যান্সার হলে অথবা মূত্রনালির মারাত্মক সংক্রমণ হলে প্রসাবের সাথে রক্ত যেতে পারে।

প্রসাবের রঙ হলুদ বর্ণের হলে লিভাবের সমস্যা হতে পারে। আমরা যেটাকে জন্ডিস বলে থাকি। এখান থেকে জেনে নিতে পারেন জন্ডিস কাকে বলে, জন্ডিস কত প্রকার, জন্ডিসের লক্ষণ এবং চিকিৎসা ইত্যাদি।

৬. শ্বাসকষ্ট ও বুকে ব্যথা হওয়া

বুকে ব্যথা হলে আমরা অনেকেই মনে করে থাকি এটা গ্যাস্ট্রিকের কারণে হচ্ছে। হ্যাঁ গ্যাস্ট্রিকের কারনেও বুকে ব্যথা হতে পারে।

কিন্তু প্রায়ই বুকে ব্যথা অনুভব হওয়া এবং শ্বাসপ্রশ্বাসে কষ্ট হওয়া কিন্তু অতি সাধারণ বিষয় নয়। তাই এমন অবস্থাটাকে অবহেলা করা একদমই উচিৎ নয়।

শ্বাসপ্রশ্বাসে কষ্ট, মাঝে মাঝেই বুকে ব্যথা, অতিরিক্ত ঘাম, হটাত হার্টবিট বেড়ে যাওয়া ইত্যাদি দেখা দিলে পুরুষদের অবশ্যই সাবধান থাকতে হবে।

বংশে কারো হৃদরোগ থাকলে, কিংবা আপনি ধূমপানে আসক্ত বা মদ্যপানে অভ্যস্ত থাকলে অবশ্যই একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করুন।

আরও পড়ুনঃ

শুধু যে পুরুষের ক্ষেত্রে এই সমস্যাগুলো দেখা দিতে পারে বিষয়টা আসলে এমনটা নয়, তবে কিছু কিছু লক্ষণ পুরুষদের বেশি দেখা দেয় তাই অন্তত এই ৬টি সমস্যা দেখা দিলে কোনভাবেই অবহেলা করা উচিৎ নয়।

এতে যৌন জীবন নষ্ট হয়ে যেতে পারে এমনকি ধীরে ধীরে মৃত্যু মুখেও পতিত হতে পারেন। ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন, এই কামনা।

Check Also

কি কি কারণে কিডনি রোগ হয়? | কিডনি রোগের কারণ | কিডনি রোগের প্রধান কারণ | কিডনি নষ্ট হওয়ার কারণ | কিডনি রোগ কেন হয়?

কিডনি রোগের কারণ কি? কিডনি কেন নষ্ট হয়ে যায়? জেনে নিন বিস্তারিত

কিডনি রোগের কারণ কি? বা কি কি কারণে কিডনি রোগ হয় বা কিডনি কেন নষ্ট …

6 comments

  1. buy anabolic online

    Thanks for the good article, I hope you continue to work as well.

  2. আপনার সাইটটি খুব যুগউপযোগী। আমি আপনার সাইট থেকে অনেক উপকৃত হয়েছি। আমি আশা করি আরো ভাল কিছু পাবো আপনার থেকে । আপনার অনুপ্রেরণায় আমি একটি সাইট তৈরি করেছি আশা করি সকলের উপকারে আসবে !

  3. আরমান হোসেন

    আমার জানা মতে সুন্দর এবং সচেতনমূলক একটি আর্টিকেল পড়লাম। আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।
    এরকম তথ্যপূর্ণ লেখা আগামীতে আরও বেশি বেশি চাই।

  4. কামাল উদ্দিন

    সময়োপযোগী সচেতনতামুলক একটি সুন্দর লেখা পড়তে পেরে আমি বেশ আনন্দিত।
    আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ এমন উপকারী একটি লেখা আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!