Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net

রূপচর্চায় কমলার খোসা – জেনে নিন ব্যবহার বিধি

কম বেশি সবার প্রিয় একটি ফল হলো কমলা। এই ফলে রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ। ভিটামিন সি, বিভিন্ন উপকারী খনিজ উপাদান এর পাশাপাশি এতে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা ত্বককে রাখে সুরক্ষিত।

নিয়মিত কমলা খেলে শরীরে ভিটামিন সি এর অভাব পূরণ হয় এবং ত্বক সতেজ থাকে।

তবে আজকে আমরা কমলা নিয়ে কথা বলবো না, তবে কমলার খোসা নিয়ে কথা বলবো। কমলার গুনাগুণের সাথে সাথে কমলার খোসারও রয়েছে অনেক গুণ যা আমরা অনেকেই জানি না।

মুখের ব্রণ কমাতে, ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে, বয়সের ছাপ কমাতে, বলিরেখা কমাতে কমলার খোসার রয়েছে জাদুকরী ক্ষমতা।

How To Use Orange Peel on Skin for Beauty Treatment

তবে কমলার খোসা কিভাবে ব্যবহার করতে হবে সেটাই হচ্ছে আসল কথা। কমলার খোসা ব্যবহারে কিছু গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম রয়েছে।

ব্যবহারের নিয়ম সঠিক না হলে হতে পারে বিপরীত প্রতিক্রিয়া। আসুন জেনে নেই, কমলার খোসা রূপচর্চায় কিভাবে ব্যবহার করা যায়?

কমলার খোসা সংরক্ষণের উপায়

সবার আগে আমাদের জেনে নেয়া উচিৎ কিভাবে কমলার খোসা সঠিক উপায়ে সংরক্ষণ করা যায়?

সবার প্রথমে কমলার খোসা ছাড়িয়ে নিতে হবে, এমনভাবে ছাড়িয়ে নিতে হবে যেন কমলার খোসার সাদা আংশটি বাদ পরে যায়। মোট কথা কমলার খোসার সাদা অংশকে ফেলে দিতে হবে। তারপর খোসাগুলো কুচি কুচি করে কেটে নিতে হবে।

এরপর শুকানোর পালা, কুচি করা কমলার খোসা একটি কাগজের উপর রেখে রান্নাঘরের যেকোনো জায়গায় রেখে দিতে হবে ২-৩ দিন। দিনে ২-৩ বার নেড়েচেড়ে দিতে হবে। চতুর্থ দিনে ১০ মিনিট রোদে দিতে হবে এবং ২-৩ বার নেড়েচেড়ে দিতে হবে।

তারপর কাঁচের বোতলে কিংবা কাঁচের বয়ামে রেখে দিন। একবার তৈরি করে সারা বছর ব্যবহার করতে পারবেন অনায়াসে। মনে রাখবেন সংরক্ষণ সঠিক নিয়মে না করলে কার্যকরীতা কমে যেতে পারে, এমনকি ত্বকের উপরও খারাপ প্রভাব পরতে পারে।

সমস্যা অনুযায়ী কমলার খোসার ব্যবহার

১. মেছতা দূর করতে কমলার খোসার ব্যবহার

যাদের মেছতা আছে তাদের চিন্তার শেষ নেই। মেছতা দূর করতে কত কিছুই না আমরা ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু বেশির ভাগ কসমেটিক ব্যবহারে মেছতা দূর হয় না। এমনকি অনেক সময় ত্বকের মারাত্মক ক্ষতি করে ফেলি। তবে এক্ষেত্রে কমলার খোসা আপনাকে দিতে পারে সঠিক সমাধান।

আসুন জেনে নেই মেছতা থাকলে কিভাবে কমলার খোসা ব্যবহার করা যায়?

প্রথমে তিন চামচ আলুর রসের সাথে এক চামচ কমলার খোসা একত্রে ভালোভাবে মিশিয়ে ১৫-২০ মিনিট রেখে দিতে হবে।  ১৫ মিনিট পর এটিকে পেস্ট করতে হবে তারপর এক চামচ কমলার রস ও একটি ডিমের শুধু সাদা অংশ পেস্টের সাথে ভালোভাবে মেশাতে হবে।

তাহলে তৈরি হয়ে যাবে মেছতা দূর করার কার্যকরী প্যাক। নিয়মিত এই মিশ্রণ ব্যবহার করলে হালকা মেছতা গাঢ় হয় না এবং নতুন করে মেছতার দাগ পড়ার সম্ভাবনা অনেক কমে যায়।

২. ব্রণ দূর করতে কমলার খোসার ব্যবহার

আমাদের দেশে বেশিরভাগ তরুণ তরুণী ব্রণ সমস্যা নিয়ে চিন্তায় থাকেন। ব্রণ নিয়ে দুশ্চিন্তা আর নয়। কমলার খোসা ব্যবহার করে নিচের প্যাকটি বানিয়ে ফেলুন।

এক চামচ কমলার খোসা প্রথমে পেস্ট করে নিতে হবে এবং এর সাথে এক চামচ পুদিনা পাতার রস, এক চামচ শঙ্খ গুঁড়া ভাবভাবে মিশিয়ে নিতে হবে তাহলেই তৈরি হয়ে যাবে ব্রণ দূর করার কার্যকরী প্যাক।

প্রতিদিন এভাবে একটি করে মিশ্রণ তৈরি করে টানা ৭ দিন পুরো মুখে ব্যবহার করলে আপনার ব্রণ সমস্যা দূর হবেই।

ব্রণ দূর করতে আরও একটি কার্যকরী প্যাক রয়েছে। এই প্যাকটি তৈরি করতে এক চামচ কমলার খোসা ভালোভাবে গুড়ো করে নিয়ে এর সাথে এক চামচ দুধ মিশিয়ে একটি আঠালো পেস্ট তৈরি করে নিন।

এই প্যাকটি মুখে লাগাতে পারেন, তবে মুখে লাগানোর পূর্বে মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে। মুখে লাগানোর পর অন্তত ১০ মিনিট অপেক্ষা করুন তারপর পানি দিয়ে ভালোভাবে মুখ পরিষ্কার করে নিন।

নিয়মিত ব্যবহারে আপনার মুখের ব্রণ দূর করার পাশাপাশি ত্বককেও করে তুলবে উজ্জ্বল।

৩. বলিরেখা দূর করতে কমলার খোসার ব্যবহার

প্রথমে এক চামচ কমলার খোসা ভালোভাবে পেস্ট করে নিতে হবে তারপর এর সাথে এক চামচ কমলার রস ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এরপর এই পেস্টের সাথে ২ টি কাঠবাদাম মিশিয়ে নিন তাহলেই হয়ে গেল বলিরেখা দূর করার কার্যকরী প্যাক এবং ব্যবহার করুন প্রতিদিন।

৪. ত্বক সতেজ করতে কমলার খোসার ব্যবহার

ত্বককে সতেজ রাখতে চাইলে কমলার খোসার জুরি নেই। প্রথমে এক চামচ কমলার রস ও এক চামচ কমলার খোসা ভালোভাবে পেস্ট করে নিতে হবে তারপর এতে এক চামচ পাকা কলা মেশাতে হবে। মিশ্রণটি গাঢ় হলে কয়েক ফোঁটা গ্লিসারিন ব্যবহার করে হাল্কা পাতলা করে নিতে পারবেন।

বাইরে থেকে ঘুরে আসলে আপনার ত্বক অনুজ্জ্বল কিংবা নিস্তেজ হয়ে পরে। এই প্যাকটি তখন ব্যবহার করলে আপনার ত্বক সহজেই সতেজ হয়ে উঠবে। আপনি চাইলে এই প্যাকটি প্রতিদিন ব্যবহার করতে পারবেন।

৫. ব্ল্যাকহেডস দূর করতে কমলার খোসার ব্যবহার

এক চামচ কমলার খোসা ভালো করে বেটে নিয়ে তাতে এক চামচ মধু দিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিতে হবে। এই পেস্টটি শুধুমাত্র ব্ল্যাকহেডস এর জায়গায় ভালো করে লাগিয়ে নিতে হবে।

কিছুক্ষণ পর যখন পেস্টটি শুকিয়ে যাবে তখন তা পরিষ্কার কাঠি দিয়ে তুলে ফেলুন। এভাবে ৮-১০ দিন ব্যবহার করলে আপনার ত্বক থেকে ব্ল্যাকহেডস দূর হয়ে যাবে।

৬. ত্বক উজ্জ্বল করার ক্ষেত্রে কমলার খোসার ব্যবহার

ত্বক উজ্জ্বল হোক আমরা সবাই চাই। তাই তো আমরা কম বেশি সবাই এর পিছনে অনেক টাকা সময় ব্যয় করে থাকি কিন্তু দিনশেষে ফলাফল শূন্যই রয়ে যায়।

কমলার খোসার যথাযথ ব্যবহারে ত্বক উজ্জল করা যায় এ ব্যাপারে আমরা কেউই হয়তো জানি না। চলুন জেনে নেই কমলার খোসার কিরূপ ব্যবহারে ত্বক উজ্জ্বল করা যায়?

প্রথমে এক চামচ কমলার খোসাকে ভালোভাবে গুড়ো করে নিতে হবে এবং তাতে অর্ধেক চামচ হলুদ গুড়ো ও এক চামচ মধু ভালোভাবে মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন।

এরপর ভালোভাবে মুখে লাগিয়ে নিন এবং ৩০-৩৫ মিনিট অপেক্ষা করার পর পানি দিয়ে ধুইয়ে ফেলুন। এই মিশ্রণটি শুধু ত্বককে উজ্জ্বল করে না বরং ত্বকের ভিতরে পুষ্টির জোগান দেয়।

ত্বক উজ্জ্বল করাতে কমলার খোসার আরও একটি ব্যবহার জেনে নিতে পারেন। এক চামচ কমলার খোসা ভালোভাবে গুড়ো করে তার সাথে এক চামচ কাঠবাদামের তেল ভালোভাবে মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে নিন এবং ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ১ থেকে ২ বার এই প্যাক ব্যবহার করলে ত্বকের উজ্জ্বলতা অনেক বৃদ্ধি পাবে।

এছাড়াও, এক চামচ অ্যালোভেরা জেল এর সাথে এক চামচ কমলার খোসার গুড়ো ভালোভাবে মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিটের মতো অপেক্ষা করুন। তারপর কুসুম কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

এভাবে সপ্তাহে ১ অথবা ২ দিন ব্যবহার করলে আপনার ত্বক পূর্বের তুলনায় বহু গুণ বেশি উজ্জ্বল হবে।

৭. ত্বক নরম ও মসৃণ করতে কমলার খোসার ব্যবহার

প্রথমে এক চামচ কমলার খোসা ভালোভাবে গুড়ো করে নিয়ে এতে এক চামচ টক দই ভালোভাবে মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করে নিন। তারপর মুখে ভালোভাবে লাগিয়ে ৩০ মিনিট রেখে দিন।

৩০ মিনিট পর হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন, এক্ষেত্রে নরমাল ঠাণ্ডা পানিও ব্যবহার করতে পারেন।

এভাবে কয়েকদিন ব্যবহার করলেই পেয়ে যাবেন কাঙ্ক্ষিত ফলাফল।

৮. কালচে দাগ দূর করতে কমলার খোসার ব্যবহার

অনেক সময় আমাদেরকে রোদে কাজ করতে হয়। এর ফলে আমাদের মুখের ত্বকে কালচে দাগ পরে যায়। এই কালচে দাগ দূর করার জন্য কমলার খোসা কার্যকরী ভুমিকা পালন করতে পারে।

এই প্যাকটি তৈরি করার জন্য প্রথমে এক চামচ কমলার খোসা ভালোভাবে গুড়ো করে নিতে হবে তারপর এর সাথে এক চামচ চন্দন কাঠের গুড়ো এবং গোলাপজল ভালোভাবে মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করে নিন।

এই মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে অন্তত ১০ থেকে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করার পর যদি শুকিয়ে যায় তবে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ৭ থেকে ১০ দিন ব্যবহার করলেই পেয়ে যাবেন আপনার কাঙ্ক্ষিত ফলাফল।

আরও পড়ুন,

*নিচের বাটনে ক্লিক করে আপনার প্রিয়জনদের সাথে শেয়ার করুন*

Check Also

How to convert white hair into black naturally

সাদা চুল কালো করার ঘরোয়া উপায়

সংসারের চিন্তা, পড়াশুনা নিয়ে চিন্তা, অফিসের কাজ নিয়ে চিন্তা এরকম হাজারও চিন্তা মাথায় নিয়ে ঘুরে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!